জেলা উপজেলা

পটিয়ায় “নিভর্রযোগ্য পরিসংখ্যান, টেকসই উন্নয়নের উপাদান” বিষয়ক শোভাযাত্রা

দক্ষিণ চট্টলা ডেস্ক : “নিভর্রযোগ্য পরিসংখ্যান, টেকসই উন্নয়নের উপাদান”এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলাতেও কাল শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ খ্রি.) প্রথমবারের মতো উদ্যাপিত হয় ‘জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস ২০২১’। সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিসংখ্যান কার্যালয়ের উদ্যোগে এক আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরিসংখ্যান কর্মকর্তা জনাব মীর আন্-নাজমুস সাকিব-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব ফয়সাল আহমেদ। সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মাজেদা বেগম শিরু, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা জনাব লুৎফুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব মোঃ মাইনুদ্দিন মজুমদার, সহকারী প্রোগ্রামার (ইউআইটিআরসিই-ব্যানবেইস) সুলতানা রাজিয়া, সহকারী তথ্য অফিসার দীপক চন্দ্র দাস ও উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আবু মোহাম্মদ হাবিব উল্লাহ। সভা শেষে দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মচারীবৃন্দ, রেজিস্ট্রারবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, বিবিএস-এর শুভাকাঙ্ক্ষীবৃন্দ, অভিভাবকবৃন্দ ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরবৃন্দ।
উল্লেখ্য, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালের ২৬ আগস্ট তৎকালীন চারটি পরিসংখ্যান সংস্থাকে (পরিকল্পনা কমিশনের অধীন পরিসংখ্যান ব্যুরো, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন কৃষি পরিসংখ্যান ব্যুরো ও কৃষি শুমারি কমিশন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন আদমশুমারি কমিশন) একীভূত করে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সার্বিক কর্মকা- সমন্বয়, তত্ত্বাবধান ও সাচিবিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য বঙ্গবন্ধু ১৯৭৫ সালের ৩ জুলাই পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীন পরিসংখ্যান বিভাগ প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ২০১২ সালে বিস্তৃত পরিসরে পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৯ সালের ২৫ অক্টোবর আগারগাঁওস্থ সুদৃশ্য ও সুপরিকল্পিত পরিসংখ্যান ভবন উদ্বোধন করেন। জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যবস্থাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপদানের লক্ষ্যে ২০১৩ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে ‘পরিসংখ্যান আইন, ২০১৩’ পাস হয়। তাই গত বছর মন্ত্রিসভার বৈঠকে দিনটিকে ‘জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

এখানে মন্তব্য করুন